Ticker

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

আদালতের 'হস্তক্ষেপের খুব সামান্য’ সুযোগ, করোনা টিকার অভিন্ন দাম নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে বলল কেন্দ্র


 
  • কেন্দ্র ও রাজ্যের মধ্যে করোনাভাইরাস টিকার দামে ফারাক না রাখার পরামর্শ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট।

     কেন্দ্র ও রাজ্যের মধ্যে করোনাভাইরাস টিকার দামে ফারাক না রাখার পরামর্শ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। প্রত্যুত্তরে কেন্দ্র জানাল, মহামারীর সময় এই বিষয়গুলিতে ‘বিচারবিভাগের হস্তক্ষেপের খুব সামান্য’ সুযোগ আছে।

    এমনিতেই কেন্দ্র এবং রাজ্যের জন্য টিকার ভিন্ন দাম নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই সরব হয়েছে বিরোধী-শাসিত রাজ্যগুলি। প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি পাঠিয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিষয়টি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টেও মামলা করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। সর্বোচ্চ আদালতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের দাবি, টিকা সংক্রান্ত নীতি বদলাতে হবে কেন্দ্রকে। রাজ্য এবং বেসরকারি হাসপাতালকে কেন ভিন্ন দামে টিকা বিক্রি করা হবে, তা নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়। সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার (এসআইআই) তরফে জানানো হয়েছিল, ডোজপিছু ৩০০ টাকা করে রাজ্য সরকারগুলিকে কোভিশিল্ড বিক্রি করবে। ভারত বায়োটেকের প্রতি ডোজ কোভ্যাক্সিন ৪০০ টাকা করে দেওয়া হবে। সুপ্রিম কোর্টের কাছে রাজ্য সরকারের দাবি, এই টাকা নেওয়া যাবে না। বরং কেন্দ্রীয় সরকারকে এমন অভিন্ন নীতি নিতে হবে যাতে রাজ্যগুলি বিনামূল্যে ভ্যাকসিন পায় এবং মানুষকে বিনামূল্যে দিতে পারে।

  • রবিবার রাতে শীর্ষ আদালতে হলফনামা জমা দিয়ে নরেন্দ্র মোদী সরকার জানিয়েছে, রাজ্যগুলির আর্জির পরই ১৮ থেকে ৪৪ বছরের মধ্যে টিকাকরণের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। রাজ্যগুলিকে অভিন্ন দামে টিকা দেওয়ার জন্য উৎপাদকদের রাজি করিয়েছে কেন্দ্র। সুপ্রিম কোর্টে জমা দেওয়া হলফানামায় কেন্দ্র বলেছে, ‘এটা স্বাভাবিক যে বড়সড় টিকাকরণ কর্মসূচির জন্য টিকা নির্মাতাদের কাছে বরাত দিচ্ছে। রাজ্য সরকার বা বেসরকারি হাসপাতালের ক্ষেত্রে তা হচ্ছে না। সেই বাস্তবের ফলে বিষয়টি টিকার দামের দরকষাকষিতে ফুটে উঠেছে।’

Post a Comment

0 Comments